আঘাত এলে পাল্টা জবাব : ওবায়দুল কাদের

28

আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মীর ওপর আঘাত এলে পাল্টা জবাব দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

Advertisement
spot_img

মঙ্গলবার (২৩ মে) বিকেলে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

আন্দোলনের নামে সহিংসতা হলে মোকাবিলা করার হুঁশিয়ারি দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কাউকে আক্রমণ করবে না, তবে আক্রান্ত হলে পাল্টা জবাব দেবে। যারা অপরাধ করবে তারা আওয়ামী লীগের হলেও কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।’

কাদের বলেন, ‘আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগের বিজয় কোনোভাবেই ঠেকানো যাবে না জেনে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে বিএনপি।’

তিনি বলেন, ‘আমি অবাক হলাম, বাংলাদেশের মানুষ অবাক হলো, হুমকি দেওয়ার পর দুই দিন চলে গেল, মির্জা ফখরুল ও বিএনপির সিনিয়র নেতারা এ বিষয়ে একটা কথাও বললেন না। সবাই নীরব দর্শক হয়ে আছেন। আমরা সংঘাতে যাব না, কেউ যদি গায়ে পরে আসে আমরা কি চুপ থাকব? আমাদের ওপর যদি আঘাত আসে, আমরা কি পাল্টা আঘাত করব না? এই অপশক্তিকে বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে বিচ্যুত করতে হবে এবং এটাই আমাদের কাজ।’

মির্জা ফখরুলকে প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের কোনো নেতা যদি খালেদা জিয়াকে হত্যার হুমকি দিত তখন আপনাদের কি অনুভূতি হত? জানতে চাই আপনার কাছে। শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও জনপ্রিয়তা কাল হয়েছে। বিএনপি বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানাতে চায়। আওয়ামী লীগ কর্মীদের অনুভূতি গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের মানুষ বুঝেছে। ৭৫ আর ২০২৩ এক নয়। বিএনপির এটা অনুধাবন করা উচিত। সারাদেশ গর্জে উঠেছে। শেখ হাসিনার ওপর হামলা হলে কী করবে! আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা চুপচাপ বসে থাকবে না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘গাজীপুর নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হবে। সরকার ও সরকারি দলের লোকজন কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। ফেয়ার নির্বাচন হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচনও ফেয়ার হবে। কেউ আসুক আর না আসুক। আমরা দেখিয়ে দিতে চাই ফ্রি ফেয়ার নির্বাচন কাকে বলে।’

ওবায়দুল কাদের বিদেশি পর্যবেক্ষকদের নির্বাচন পর্যবেক্ষণের আহ্বান জানান। বলেন, আসুন, দেখুন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন কাকে বলে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আফম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির, দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজসহ মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা।

Advertisement
spot_img