এ বাজেট আজিজ, বেনজীরদের মতো লুটেরাদের : নুরুল হক নুর

22

‘এই যে বাজেট দিয়েছে, সেখানে বৈধ আয়ে কর দিতে হবে ৩০% আর লুটপাট, ব্যাংক ডাকাতির মাধ্যমে অর্জিত অবৈধ আয়ে দিতে হবে ১৫%। এভাবে সরকার লুটেরাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে। এই বাজেট সাধারণ মানুষের জন্য নয়, এ বাজেট আজিজ, বেনজীরদের মতো লুটেরাদের জন্য।’

Advertisement
spot_img

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে ‘সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ-সাবেক আইজি বেনজীর আহমেদসহ দুর্নীতিবাজ-লুটেরা-মাফিয়া এবং তাদের পৃষ্ঠপোষকদের গ্রেপ্তারের দাবিতে’ এক গণবিক্ষোভপূর্ব এক সমাবেশে এ মন্তব্য করেন গণঅধিকার পরিষদের সভাপতি নুরুল হক নুর।

তিনি বলেন, সংবিধানের ২০নং অনুচ্ছেদে আছে অনুপার্জিত আয় কোন ব্যক্তি ভোগ করতে পারবে না। তাহলে এক কথায় এই বাজেট ঘুষ ও দুর্নীতিকে উৎসাহিত করার সংবিধান বিরোধী বাজেট।

গাজীপুরে কলেজছাত্র খুন : ছাত্রলীগের ১৮ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা, দুই কমিটি বিলুপ্ত
নুর বলেন, ৫২, ৬৯, ৭১ সালে, এমনকি দেশ স্বাধীনের পর ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন, ইতিহাসের সমস্ত আন্দোলন-সংগ্রাম তরুণদের কারণে জয়ী হয়েছে। আজকের এই দুর্নীতিবাজ ও লুটেরা সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্র-যুবকদের জেগে উঠতে হবে। ছাত্র-যুবক-তরুণরা জেগে না উঠলে এই ফ্যাসিস্ট শাসনের পরিবর্তন হবে না। তাই ছাত্র এবং যুব অধিকার পরিষদকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সারা দেশে জনগণকে সংগঠিত করতে হবে।

তিনি বলেন, দুর্নীতি রাষ্ট্রের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়েছে। দেশে নির্বাচন, ভোট, গণতন্ত্র না থাকায় জবাবদিহিতাহীন সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আর সরকারের জবাবদিহিতা না থাকায় দুর্নীতি এখন স্বাভাবিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে। বলতে গেলে দুর্নীতি এখন প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করেছে। হাসপাতালের মর্গ থেকে লাশ বের করতেও ঘুষ দিতে হয়। সরকারি এমন কোন দপ্তর, অফিস নেই যেখানে ঘুষ ও দুর্নীতি নাই। সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতায় থাকতে আজিজ-বেনজীরদের তৈরি করেছে। এখন তাদের দায় নিতে চাচ্ছে না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি জাহাঙ্গীর হিরনের সভাপতিত্বে গণবিক্ষোভে আরও বক্তব্য রাখেন গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. রাশেদ খাঁন, উচ্চতর পরিষদের সদস্য আবু হানিফ, শাকিল উজ্জামান, ফাতিমা তাসনিম, বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি মনজুর মোর্শেদ মামুন প্রমুখ।

পরে প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। পল্টন মোড়, দৈনিক বাংলা মোড়, ফকিরাপুল, নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়, নাইটিংগেল মোড় ঘুরে বিজয়নগর পানির ট্যাংকির মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

Advertisement
spot_img